RESIST FASCIST TERROR IN WB BY TMC-MAOIST-POLICE-MEDIA NEXUS

(CLICK ON CAPTION/LINK/POSTING BELOW TO ENLARGE & READ)

Sunday, February 12, 2017

মোদী ক্ষমতায় আসার পর ২০১৪ সালের ২২শে নভেম্বর কেন্দ্রীয় ‌আয়কর দপ্তরের অফিসাররা দিল্লির দুটি স্থানে সাহারা ইন্ডিয়া গোষ্ঠীর অফিসে হানা দিয়ে অনেক বিস্ফোরক নথিপত্র ও নগদ ১৩৭ কোটি টাকা উদ্ধার করে। এ্‌ই নথিপত্রে দেখা যায় যে, এই পর্বে বি জে পি নেতাদের দেওয়া হয়েছিল ২৩ কোটি টাকা, মোদীজীকে দেওয়া হয়েছিল ৪০.১ কোটি টাকা । বিভিন্ন সংবাদপত্র ও মিডিয়ার কাছে এইসব নথিপত্রগুলি রয়েছে। আয়কর দপ্তরের অফিসারেরা এইসব নথিপত্রে স্বাক্ষর করে রেখেছে। একটি বেসরকারি সংস্থার পক্ষ থেকে প্রাক্তন বিচারপতি, সুপ্রিম কোর্টের প্রবীণ আইনজীবীসহ বেশ কয়েকজন বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ ই ডি, সি বি আই, আয়কর দপ্তর, ভিজিল্যান্স কমিশন, প্রত্যক্ষ কর বিভাগ প্রভৃতি সংস্থার কাছে অনুসন্ধান চালিয়ে যাওয়ার জন্য আহ্বান জানানো হয়েছে। কেন্দ্রীয় সরকার গঠিত ‘মীমাংসা কমিশনে’ বিষয়টির ফয়সালা স্থগিত রাখতে আবেদন জানানো হয়েছে। এই এন জি ও-র পক্ষ থেকে শীর্ষ আদালতে উপরোক্ত ঘুষ কেলেঙ্কারির তদন্তে আদালতের তত্ত্বাবধানে বিশেষ তদন্ত টিম গঠনের আবেদন জানানো হয়। কয়েক দফা শুনানির পর দু’জন বিচারপতির বেঞ্চের পক্ষ থেকে তদন্তের আবেদন নাকচ করে বলা হয় যে, তদন্তের জন্য যথেষ্ট বিষয়বস্তু নেই, যা তাঁদের বিবেককে নাড়া দিতে পারে। এটা নিয়ে অনেক প্রশ্ন উঠেছে। আবেদনকারীদের কৌঁসুলি প্রশান্তভূষণ মন্তব্য করেছেন, এই রায় দুর্নীতির বিরুদ্ধে গোটা প্রচারের বিরুদ্ধে আঘাত এবং শীর্ষ আদালতের খ্যাতির ওপর একটা কালো দাগ। শীর্ষ আদালত সবসময় বলে আসছে যে আইন সকলের জন্য সমান এবং যে যত বড়ই হোক না কেন আইন তার চেয়েও বড়। এই রায় শীর্ষ আদালতের এহেন বক্তব্যের প্রতিও বিশ্বাসঘাতকতা করেছে। এখন প্রশ্ন উঠেছে এই ঘুষকাণ্ডে প্রধানমন্ত্রীর নাম জড়িয়ে যাওয়ার কারণে ভাবমূর্তি মেরামতি করতে কি তড়িঘড়ি অপরিকল্পিতভাবে ৮ই নভেম্বর ‘নোট’ বাতিলের সিদ্ধান্ত! কয়লা কেলেঙ্কারি এবং ২জি কেলেঙ্কারিতে শীর্ষ আদালত নিরপেক্ষ তদন্তের আদেশ দিলেও এক্ষেত্রে দিল না কেন? ইতিপূর্বে শীর্ষ আদালতের রায় ছিল যে কোন সরকারি এজেন্সি যদি সরকারি পদাধিকারীদের অবৈধ অর্থ প্রাপ্তি সম্পর্কিত বিষয় রেকর্ডে নথিভুক্ত করে তবে পূর্ণাঙ্গ ও স্বাধীন তদন্ত করতে হবে। এক্ষেত্রে সরকারি অনুসন্ধান এজেন্সিগুলির নথিপত্রে রেকর্ডভুক্ত হওয়া সত্ত্বেও সুপ্রিম কোর্ট কেন ভিন্ন আদেশ দিল! বাজেয়াপ্ত নথিপত্রগুলির ওপর আরও তদন্তকে এগিয়ে না নিয়ে সি বি আই এবং আয়কর বিভাগ কি শীর্ষ আদালতের নির্দেশিকার বিরুদ্ধে যায়নি? -Courtesy: মৃদুল দে

No comments: