RESIST FASCIST TERROR IN WB BY TMC-MAOIST-POLICE-MEDIA NEXUS

(CLICK ON CAPTION/LINK/POSTING BELOW TO ENLARGE & READ)

Sunday, June 21, 2015

ITIHAS PARISHAD - ইতিহাস পরিষদে এবার ইস্তফা সদস্য-সচিবের। সঙ্ঘ পরিবারের সাম্প্রদায়িক দাপটের জের।********************************************************নয়াদিল্লি, ১৯শে জুন — সঙ্ঘ পরিবারের কুৎসিত সাম্প্রদায়িক তৎপরতায় তিতিবিরক্ত হয়ে মেয়াদ শেষের আগেই ইস্তফা দিতে বাধ্য হলেন ভারতীয় ইতিহাস গবেষণা পরিষদের সদস্য-সচিব গোপীনাথ রবীন্দ্রন। আর এস এস মনোনীত নবনিযুক্ত চেয়ারপারসন ওয়াই সুদর্শন রাও যেভাবে গুরুত্বপূর্ণ এই গবেষণা সংস্থাটির ধর্মনিরপেক্ষ চরিত্র ধ্বংস করতে পরিকল্পিতভাবে উদ্যোগী হয়েছেন, তার প্রতিবাদেই রবীন্দ্রন চলতি সপ্তাহের গোড়ায় পদত্যাগ করেছেন বলে খবর। সদস্য-সচিব হিসেবে ২০১৬সাল পর্যন্ত তাঁর মেয়াদ ছিলো। কেন্দ্রে মোদী সরকার ক্ষমতাসীন হওয়ার পরেই গত জানুয়ারিতে ভারতীয় ইতিহাস গবেষণা পরিষদ (আই সি এইচ আর)-এর মাথায় বিতর্কিত সুদর্শন রাওকে বসিয়ে দেওয়া হয়। ধর্মনিরপেক্ষ ও বস্তুনিষ্ঠ ইতিহাস গবেষণার জন্য সুদীর্ঘকাল ধরে আন্তর্জাতিক স্তরে অত্যন্ত সুনামের অধিকারী এই সংস্থায় সাম্প্রদায়িক হানাদারি শুরু হয় তখন থেকেই। গত মাসেই ইতিহাস পরিষদের অতি মর্যাদাসম্পন্ন জার্নাল ‘দি ইন্ডিয়ান হিস্টরিক্যাল রিভিউ’-এর সম্পাদকীয় বোর্ড এবং উপদেষ্টা কমিটি ভেঙে দেওয়া হয়। সরিয়ে দেওয়া হয় রোমিলা থাপার, ইরফান হাবিবের মতো বিশ্ববন্দিত ২১জন ঐতিহাসিককে। যেসব বিশিষ্ট ঐতিহাসিকের পরিশ্রমের জন্য এই জার্নাল খ্যাতিমান হয়েছে, মোদী সরকারের ব্লু-প্রিন্ট তাঁদেরই ছেঁটে ফেলায়, সাময়িকীটির ভবিষ্যৎ নিয়েই বিদগ্ধ মহলে জোরালো প্রশ্ন উঠে যায়। জানা গেছে, পরিষদের পক্ষে এই আত্মঘাতী সিদ্ধান্তের তীব্র বিরোধিতা করেছিলেন রবীন্দ্রন। কিন্তু সঙ্ঘ পরিবারের দাপটে তাঁর মতামত গুরুত্ব পায়নি। বরং এই প্রতিবাদের কারণেই পরিষদের অভ্যন্তরে তাঁকে কোণঠাসা করে ফেলা হয়। প্রসঙ্গত, গত এপ্রিলে জার্নালের প্রধান সম্পাদক খ্যাতনামা ইতিহাসবিদ সব্যসাচী ভট্টাচার্য পদত্যাগ করার পর থেকেই পরিষদে সঙ্ঘ পরিবারের বহু অপকর্ম প্রকাশ্যে আসতে শুরু করে। ভট্টাচার্য প্রকাশ্যে ইস্তফার কোন কারণ না জানালেও, জানা গেছে ইতিহাস পরিষদকে যেভাবে সাম্প্রদায়িক পথে টেনে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে, তাতে তিনিও অত্যন্ত অখুশি ছিলেন।

No comments: